ভিডিও এডিটিং কিভাবে শিখব

ভিডিও এডিটিং কিভাবে শিখব

ভিডিও এডিটিং কিভাবে শিখব – (How to learn video editing)

বন্ধুরা, যদি আপনারা ভিডিও এডিটিং শিখতে চাইছেন, তাহলে অবশই আমাদের আজকের এই আর্টিকেল আপনারা ভালো করে পড়ুন।

কেননা, আজকের আর্টিকেলের মাধ্যমে, আমরা সম্পূর্ণ স্পষ্ট ভাবে ভিডিও এডিটিং কিভাবে শিখব (How to learn video editing in Bengali) এই বিষয়ে জানতে চলেছি।

বর্তমান সময়ে video editing হলো এমন একটি লাভজনক স্কিল (skill), যার মাধ্যমে ঘরে বসে বিভিন্ন মাধ্যমে টাকা ইনকাম করা সম্ভব।

আপনি নিজের একটি ইউটিউব চ্যানেল বানিয়ে টাকা আয় করতে পারবেন বা ফ্রিল্যান্স ভিডিও এডিটর হিসেবে কাজ করতে পারবেন ইত্যাদি।

বলতে গেলে, এখনের অনলাইন দুনিয়াতে ভিডিও কন্টেন্টের চাহিদা প্রচুর বৃদ্ধি পেয়েছে,

আর তাই, আপনি যদি ভিডিও এডিটিং এর কাজ ভালো করে শিখে নিতে পারেন, তাহলে একটি ভালো ক্যারিয়ার তৈরির সুযোগ অবশই থাকছে।

যদি ভালো করে দেখা যায়, তাহলে একজন সাধারণ ভিডিও এডিটর বছরে মোটামোটি ৫ থেকে ৬ লক্ষ টাকা কেবল সাধারণ ফ্রিল্যান্স কাজ গুলো করেই ইনকাম করে নিতে পারেন।

আর, এখন যদি আপনিও যদি ভাবছেন যে, কিভাবে ভিডিও এডিটিং শেখা যাবে তাহলে, চিন্তার কোনো বিষয় নেই।

  • গ্রাফিক্স ডিজাইন কিভাবে শিখব ?
  • গ্রাফিক্স ডিজাইন শেখার ওয়েবসাইট 

নিচে আমি আপনাদের ভিডিও এডিটিং শেখার সম্পূর্ণ ধাপ গুলো একে একে বলে দিতে চলেছি।

Video editing কি ?

বন্ধুরা, video editing কিভাবে শিখতে হবে সেই বিষয়ে জানার আগে আপনাদের ভিডিও এডিটিং এর বিষয়ে সম্পূর্ণ স্পষ্ট ভাবে জেনেনিতে হবে।

ভিডিও এডিটিং হলো সেই প্রক্রিয়াটি, যেখানে একটি সম্পূর্ণ ভিডিও ফাইল বা মুভি তৈরি করার উদ্দেশ্যে বিভিন্ন ভিডিও ক্লিপ (video clips), ইমেজ (image) এবং সাউন্ড (sound) গুলোকে এডিট, রিপ্লেস, ম্যানেজ বা সেগুলোকে একসাথে জোড়া বা যুক্ত করার কাজ করা হয়।

বর্তমান সময়ে আমরা, YouTube, Instagram, Facebook ইত্যাদি বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়া প্লাটফর্ম গুলোতে নানান আকর্ষণীয় ভিডিও গুলো দেখে থাকি।

তবে সেগুলো কিন্তু আগের থেকেই এতটা আকর্ষণীয় থেকে থাকেনা।

কেননা ভিডিও গুলোকে ভিডিও এডিটিং এর প্রক্রিয়ার মাধ্যমে অধিক আকর্ষণীয় করে তোলা হয়।

ভিডিও এডিটিং এর প্রক্রিয়াটিকে যদি আরো সহজ ভাবে বুঝার চেষ্টা করা হয় তাহলে বলা যেতে পারে যে,

“ভিডিও এডিটিং হলো সেই প্রক্রিয়া, যেখানে একটি সাধারণ ভিডিও ফাইল বা ক্লিপ টিকে কাট (cut), ক্রপ (crop) বা স্প্লিট (split) ইত্যাদি করে সেখানে বিভিন্ন ধরণের এফেক্টস, সাউন্ড, এলিমেন্টস ইত্যাদি যোগ করে ভিডিও ফাইলটি অধিক আকর্ষণীয় করার চেশটা করা হয়”.

আর এই কাজ করার ক্ষেত্রে প্রচুর দক্ষতার এবং সঠিকতার প্রয়োজন, কেননা এখানে প্রত্যেক সেকেন্ডে সেকেন্ডে ভিডিওটিকে এডিট করতে লাগতে পারে।

তাহলে এখন হয়তো আপনারা ভালো করে বুঝতেই পেরেছেন হয়তো যে, ভিডিও এডিটিং কি বা কাকে বলে

ভিডিও এডিটিং কিভাবে শিখব ?

Video editing শিখা তেমন একটি কঠিন কাজ না, তবে আপনাকে সম্পূর্ণ ভাবে মন দিয়ে এই কাজ শিখার চেষ্টা করতে হবে।

ভিডিও এডিটিং শিখার ক্ষেত্রে আপনাকে কিছু নিয়ম এবং ধাপ (steps) গুলো অনুসরণ করতে হবে।

এভাবে, সঠিক নিয়ম গুলো অনুসরণ করে এগিয়ে যেতে পারলে আপনি basic থেকে advanced video editing skills গুলো খুব তাড়াতাড়ি শিখে নিতে পারবেন।

তাহলে চলুন, একজন প্রফেশনাল ভিডিও এডিটর হতে গেলে আপনাকে শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত কি কি করতে হবে, সবটা এক কে জেনেনেই।

১. নিজের একটি এডিটিং সেটআপ তৈরি করুন

যেকোনো নতুন জিনিস শিখার জন্যে আপনার কাছে একটি সেটআপ থাকাটা অনেক জরুরি।

যেভাবে, গিটার (Guitar) বাজানো শেখার জন্যে আপনার কাছে একটি গিটার থাকাটা জরুরি,

ঠিক সেভাবেই, ভিডিও এডিটিং এর কাজ শেখার জন্যে আপনার কাছে কাজ প্রাকটিস করার জন্যে একটি সেটআপ অবশই থাকতে হবে।

আপনি নিজের ঘরের যেকোনো রুমে নিজের সেটআপ রাখতে পারেন।

সেটআপ এর মধ্যে থাকছে, একটি কম্পিউটার বা ল্যাপটপ, সাউন্ড সিস্টেম (sound system), হেডফোন এবং ইন্টারনেট কানেক্শন।

এমনিতে, ভিডিও এডিটিং এর কাজে সরাসরি ইন্টারনেটের কাজ তেমন বিশেষ নেই,

তবে, অনেক সময় বিভিন্ন এফেক্টস, ক্লিপ, ইমেজ এবং টিউটোরিয়াল গুলো ডাউনলোড করার ক্ষেত্রে ইন্টারনেটের প্রয়োজন হয়ে থাকে।

এছাড়া, ভিডিও এডিটিং শেখার জন্যে আমরা মূলত বিভিন্ন অনলাইন কোর্স বা উপায় গুলো ব্যবহার করে থাকি,

তাই, একটি দ্রুত ইন্টারনেট এর সুবিধা অবশই থাকাটা জরুরি।

২. একটি free অথবা paid course এর সাথে যুক্ত হতে হবে

অবশই, যেকোনো জিনিস শেখার জন্যে আপনাকে একজন দক্ষ (skilled) ব্যক্তির থেকে জ্ঞান এবং প্রশিক্ষণ নিতেই হবে।

এখন সেটা আপনার ওপরে থাকছে যে, আপনি কিছু টাকা খরচ করে প্রফেশনাল দের থেকে শিখতে চাইছেন নাকি ফ্রীতে বেসিক নলেজ পেতে চাইছেন।

ভিডিও এডিটিং শেখার ক্ষেত্রেও বিষয়টা একি হয়ে দাঁড়াচ্ছে,

দেখুন, কাজ শেখার জন্যে আপনাকে একটি ভালো ভিডিও এডিটিং কোর্স এর সাথে অবশই যুক্ত হতে হবে।

এখন, এটা সম্পূর্ণ ভাবে আপনার ওপরে যে, আপনি YouTube এর মাধ্যমে free video editing tutorial video গুলো দেখে কাজ শিখবেন,

নাকি Udemy এর মতো প্লাটফর্মে গিয়ে সামান্য টাকা দিয়ে একটি প্রফেশনাল video editing course কিনে professional ভাবে কাজ শিখবেন।

তবে হে, শুরুতে YouTube থেকেই আপনারা basic editing এর কাজ গুলো শিখে নিতে পারবেন।

৩. একটি ভিডিও এডিটিং সফটওয়্যার

যেকোনো ভিডিওকে এডিট করার ক্ষেত্রে, আপনাকে একটি video editing software অবশই ব্যবহার করতে হবে।

এমনিতে, ইন্টারনেটে প্রচুর ফ্রি ভিডিও এডিটিং সফটওয়্যার গুলো আপনারা পাবেন, যেগুলো শুরুতে কাজ শেখার জন্যে অবশই ব্যবহার করা যাবে।

তবে, আপনি যত ভালো এডিটিং সফটওয়্যার এর মাধ্যমে ভিডিও এডিট করবেন, এডিটিং এর ফলাফল ততটাই দারুন হবে।

এছাড়া, একটি premium video editor এর মাধ্যমে আপনারা প্রচুর advanced features এবং functions গুলোর বিষয়ে জানতে পারবেন, যেগুলো হয়তো ফ্রি editing software গুলোতে আপনারা পাবেননা।

যদি আপনি সত্যি নিজের এডিটিং এর কাজ প্রফেশনাল ভাবে শিখতে ও করতে চান,

তাহলে অনলাইন মার্কেটে অনেক কম দামে প্রচুর ভালো ভালো ভিডিও এডিটিং সফটওয়্যার রয়েছে যেগুলোকে ব্যবহার করার পরামর্শ আমি দিবো।

কিছু সেরা ভিডিও এডিট করার সফটওয়্যার গুলো হলো – 

  • Flimora
  • Adobe Premier Pro
  • Final Cut Pro
  • After Effects

আপনি যদি সম্পূর্ণ ফ্রি ভিডিও এডিটিং সফটওয়্যার ব্যবহার করতে চাইছেন, তাহলে Blender, Shotcut বা OpenShot ব্যবহার করতে পারেন।

ওপরে আমরা যেই প্রক্রিয়ার বিষয়ে চর্চা করলাম সেটা ছিল সেই ব্যক্তিদের জন্যে যারা নিজের কম্পিউটার বা ল্যাপটপের মাধ্যমে ভিডিও এডিটিং করা শিখতে চাইছেন।

তবে, এরকম অনেক ব্যক্তিরা রয়েছে, যারা নিজের smartphone বা android mobile এর মাধ্যমে video editing করতে চান।

তবে চিন্তা নেই, মোবাইল ইউসার দের জন্যেও মোবাইলে ভিডিও এডিটিং শিখার বা করার দারুন উপায় বর্তমানে রয়েছে।

Mobile দিয়ে ভিডিও এডিট কিভাবে করবেন ?

যদি আপনি শুধুমাত্র নিজের মোবাইলের মাধ্যমে ভিডিও এডিটিং করা শিখতে চাইছেন, তাহলে অবশই ওপরে বলা প্রত্যেকটি স্টেপ আপনারা স্কিপ করতে পারবেন।

তবে, এক্ষেত্রেও একটি সেরা ভিডিও এডিটিং কোর্স এর সাথে যুক্তি হওয়ার স্টেপটি আপনাকে ফলো করতেই হবে।

কেননা, ডিভাইস যেটাই ব্যবহার করছেননা কেন, কাজ শিখার জন্যে আপনাকে একজন প্রশিক্ষক এর প্রয়োজন অবশই পরবে।

যদি আপনি ভিডিও এডিটিং এর বিষয়টি কেবল দেখতে, অনুভব করতে এবং কিভাবে কাজ করে এর বেসিক বিষয় গুলো জানতে চাইছেন,

তাহলে টাকা খরচ করে এগুলো করতে হবেনা, আপনি আপনার মোবাইল থেকেই এই কাজ গুলো আরামে করতে পারবেন।

নিচে কিছু সেরা মোবাইল ভিডিও এডিটিং এপস গুলোর বিষয়ে বলা হলো, যেগুলোর মাধ্যমে মোবাইলেই প্রফেশনাল ভিডিও এডিটিং এর মজা নিতে পারবেন।

  • Kinemaster
  • Adobe Rush
  • Flimora Go
  • PowerDirector
  • Quik
  • Filmmaker Pro

একজন ভিডিও এডিটর হিসেবে কাজ কিভাবে খুজবেন ?

একবার ভালো করে কাজ শিখে নেওয়ার পর আপনি বিভিন্ন company বা clients দের জন্যে তাদের project গুলোতে ভিডিও এডিটিং এর কাজ করতে পারবেন।

তাই, আপনি একজন ফ্রিল্যান্স ভিডিও এডিটর হিসেবে কাজ অবশই খুঁজতে পারবেন।

আপনি নিজের চাকরির পাশাপাশি একজন Freelance Video Editor হিসেবে কাজ করে part-time income করতে পারবেন।

বা চাইলে, Full Time Video Editor হিসেবে কেবল এই কাজেই সম্পূর্ণ ফোকাস দিতে পারেন।

একজন ফ্রিল্যান্স ভিডিও এডিটর হিসেবে কাজ খুজার জন্যে আপনি বিভিন্ন online freelancing marketplace গুলোতে গিয়ে কাজ খুঁজতে পারেন।

যেমন,

  1. Upwork.com
  2. Freelancer.com
  3. Fiverr.com

তবে, ফ্রিল্যান্স হিসেবে কাজ করার আগে আপনাকে আগেই জেনেনিতে হবে যে, “ফ্রিল্যান্সিং কি এবং কিভাবে করবেন“.

আমাদের শেষ কথা,,

তাহলে বন্ধুরা, আমাদের আজকের আর্টিকেলের মাধ্যমে আপনারা জানতে পারলেন যে, ভিডিও এডিটিং কি এবং কিভাবে শিখব ?

আশা করছি, আপনারা আমাদের এই আর্টিকেলের মাধ্যমে নতুন কিছু অবশই শিখতে পেরেছেন।

ভিডিও এডিটিং আপনারা একদিনে শিখতে পারবেননা,

তবে নিয়মিত প্রাকটিস / অনুসরণ এর মাধ্যমে যখন নতুন নতুন টেকনিক গুলো ধীরে ধীরে জেনে যাবেন,

তখন একজন বেসিক এডিটর থেকে অ্যাডভান্স লেভেলে কখন চলে আসবেন, নিজেই বুঝতে পারবেননা।

যাই হোক, আমাদের আজকের আর্টিকেলের সাথে জড়িত কোনো ধরণের প্রশ্ন বা পরামর্শ থাকলে, অবশই নিচে কমেন্ট করে জানাবেন।

Rubel

Related Travel Posts

কীবোর্ড কি ? কীবোর্ড কত প্রকার ও কি কি – (About keyboard in Bangla)

কীবোর্ড কি ? কীবোর্ড কত প্রকার ও কি কি – (About keyboard in Bangla)

আধুনিক কম্পিউটারের জনক কে । কম্পিউটার কে আবিষ্কার করেন

আধুনিক কম্পিউটারের জনক কে । কম্পিউটার কে আবিষ্কার করেন

ল্যাপটপ কি ? ল্যাপটপ দিয়ে কি কি কাজ করা যায়

ল্যাপটপ কি ? ল্যাপটপ দিয়ে কি কি কাজ করা যায়

ল্যাপটপ বা কম্পিউটারে ভাইরাস আক্রান্ত হওয়ার লক্ষণ

ল্যাপটপ বা কম্পিউটারে ভাইরাস আক্রান্ত হওয়ার লক্ষণ

No Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Recent Posts

Tags